স্বাগতম :
আজ: শনিবার, আগস্ট ২৭, ২০১৬
শঙ্কামুক্ত নন হায়াৎ আইভী ডিএনসিসি উপনির্বাচন: ৩ মাসের জন্য স্থগিত বাগদাদে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরন অতিরিক্ত ডিআইজি পদমর্যাদায় রদবদল অতিরিক্ত সচিব ও যুগ্ম সচিব পর্যায়ে রদবদল নাখালপাড়ায় জঙ্গি অভিযান: নিহত ৩ দেশ কেন মাদক থেকে মুক্ত হতে পারছে না? মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়কের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস নির্মল সেনের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত পুলিশ সপ্তাহ শুরু

বিপদসীমার ওপরে পদ্মায় পানি

নিজস্ব প্রতিনিধি,এসবিডি নিউজ24 ডট কমঃ বিহারের বন‌্যার কারণে ভারত ফারাক্কা বাঁধের সবগুলো গেইট খুলে দেয়ায় রাজশাহীতে পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। শুক্রবার পানির উচ্চতা আরও ৯ সেন্টিমিটার বেড়েছে। বর্তমানে ১৮ দশমিক ২৬ মিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। বিপৎসীমার (১৮ দশমিক ৫০) মাত্র ২৪ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে পদ্মার পানি।


রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, যে দ্রুত গতিতে পানি বাড়ছে তাতে শনিবার রাতেই পানি বিপদসীমা স্পর্শ করতে পারে। হঠাৎ করেই পানি বাড়তে থাকায় নগরীর মানুষের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।


শুক্রবার নগরীর কুমারপাড়া, বড়কুঠি, পুলিশ লাইন্স ও জিয়ানগর এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, পদ্মার পানি প্রবল বেগে প্রবাহিত হচ্ছে। মধ্যচরের অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। সামান্য কিছু কাঁশবন মাথা উচু করে জানান দিচ্ছে এখানে এক সপ্তাহ আগেও মধ্যচর বলে কিছু ছিল। গত শুষ্ক মৌসুমে মধ্যচরে যেসব বাড়ি করে দেয়া হয়েছিল সেগুলোর চালা ছাড়া সবই ডুবে গেছে পানিতে। শহররক্ষা বাঁধের প্রায় সমান উচ্চতা নিয়েই পানি বয়ে যাচ্ছে। এতে ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে শহরের বুলনপুর পুলিশ লাইন্স, সোনাইকান্দি, বেড়পাড়া এবং নবগঙ্গা এলাকা।


রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান বলেন, ‘পুলিশ লাইন্সের সামনের এলাকাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবুও পানি উন্নয়ন বোর্ড অবহেলা করে তারা সঠিক সময়ে সংস্কার কাজ শুরু করেনি। পদ্মায় পানি যেভাবে বাড়ছে তাতে যেকোনো সময় পুলিশ লাইন্সের সামনের বাঁধসহ সোনাইকান্দি, বেড়পাড়া, নবগঙ্গা এলাকার শহর রক্ষা বাঁধের ক্ষতিগ্রস্ত অংশে ভাঙন দেখা দিতে পারে। এসব এলাকায় ভাঙন দেখা দিলে পুরো রাজশাহী শহর পানিতে তলিয়ে যাবে। কারণ শহর রক্ষা বাঁধের চেয়ে রাজশাহী শহর নিচু। বর্তমানের শহরের লেবেলের চেয়ে পানি উঁচুতে প্রবাহিত হচ্ছে।’


রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, গত মঙ্গলবার থেকে পদ্মায় পানি বাড়তে শুরু করেছে। গত সোমবার পানির উচ্চতা ছিল ১৭ দশমিক ৭৬ মিটার। এর পরদিন গত মঙ্গলবার ১৭ দশমিক ৯৪ মিটার, বুধবার ১৮ দশমিক ১০ মিটার, বৃহস্পতিবার পানির উচ্চতা রেকর্ড করা হয় ১৮ দশমিক ১৭ মিটার। শুক্রবার আরও ৯ সেন্টিমিটার বেড়ে পানির উচ্চতা হয়েছে ১৮ দশমিক ২৬ মিটার।


পানি উন্নয়ন বোর্ডের ওয়েবসাইট ফ্লাড ফোরকাস্টিং অ্যান্ড ওয়ারনিং সেন্টার (এফএফডব্লিউসি) পূর্বাভাস বলছে, শনিবার সকাল ৬টায় পানির উচ্চতা থাকবে ১৮ দশমিক ৩৭ মিটার, রোববার ১৮ দশমিক ৪৬ এবং সোমবার বিপৎসীমা ছাড়িয়ে পানি প্রবাহিত হবে ১৮ দশমিক ৫৪ মিটারের ওপর দিয়ে।


তবে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানিবিজ্ঞান প্রকৌশল বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এসএম আলী মর্ত্তুজা বলেন, ‘পানি যে গতিতে বাড়ছে তাতে মনে হচ্ছে শনিবার রাতেই বিপৎসীমা স্পর্শ করবে। সেক্ষেত্রে যদি বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয় বা বাঁধে কোনো গর্ত থাকে তখন শহরে পানি প্রবেশ করতে পারে। তবে যমুনায় পানি কম থাকায় ভয়ের কিছু নেই। আশা করা হচ্ছে খুব শিগগিরই পানি কমে যাবে।’

প্রাসঙ্গিক সংবাদঃ

  • মাদারটেকে বন্যার পানি!
  • সিরাজগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির ক্রমাবনতি!
  • ডাব্লিউবিবি ট্রাস্ট ও রেইন ফোরামের যৌথ মতবিনিময়ঃ পানি সংকট নিরসনে বৃষ্টির পানি ব্যবহার জরুরী
  • অরক্ষিত উপকূলীয়বাসী
  • তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি নিয়ে আলোচনা করতে ঢাকায় আসছে ভারতীয় প্রতিনিধিদল