স্বাগতম :
আজ: বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৩, ২০১৬
অর্থ ছাড়া সেবা দেয়া যায় না: অর্থমন্ত্রী ‘মোটাগুনিয়া’ এবং মেয়র সাহেবরা ট্রাকের সঙ্গে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় নিহত ২, আহত ৫ দরিদ্রদের জন্যেও ফ্ল্যাট! পরলোকে বিচারপতি আনোয়ারুল হক সৌদি আরবে অগ্নিকাণ্ড ভাটারা ও তুরাগ থানার ‘ওসি’ বদলি বহুকালের ইচ্ছে (ফাতেমা হক মুক্তা) সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ ‘নিরুৎসায়িত’ করার উদ্যোগ মেয়র আনিসুল হকের বিরুদ্ধে মামলা

ইংলিশদের সিরিজ জয়!

ক্রীড়া প্রতিবেদক: ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশে রোমাঞ্চকর ওয়ানডে সিরিজ নিজেদের দখলে রাখতে পারলো না মাশরাফি-মুশফিকরা। ১৩ বল বাকি থাকতেই বাংলাদেশের দেওয়া ২৭৮ রানের লক্ষে পৌছে গেল ইংল্যান্ড। তৃতীয় ওয়ানডেতে টাইগারদের ৪ উইকেট হারিয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিল ইংলিশ দল। প্রায় দুই বছর পর প্রথম কোনো সিরিজ হারের যন্ত্রণা সইতে হলো বাংলাদেশকে। ২০১৪ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের পর থেকে পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, আবার জিম্বাবুয়ে, আফগানিস্তান – সব সিরিজেই জিতেছে বাংলাদেশ। ৪৮ তম ওভারের শফিউলের করা শেষ বলটি ছক্কা মেরে ইংল্যান্ডকে ম্যাচ ও সিরিজ জিতিয়ে দিলেন ওকস।প্রথম খেলায় সেঞ্চুরি হাঁকানো স্টোকসই হয়েছেন ম্যান অব দ্য সিরিজ। ম্যানর অব দ্য ম্যান হয়েছেন চার উইকেট নেয়া আদিল রশিদ।


বুধবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম টসে হেরে আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ২৭৭ রান করেছিল বাংলাদেশ।  জবাবে শুরু থেকেই সাবধানী ও হিসেবি ব্যাটিং করা ইংলিশ ব্যাটসম্যানেরা আজ কোন সুযোগই দেয়নি বাংলাদেশের বোলারদের। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারালেও তারা রানের চাকা সচল রেখেছে পুরো ইনিংস জুড়েই। উদ্বোধীন জুটিতে ৬৩ ও দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৬৪ রানই মূলত বাংলাদেশকে ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয়। তৃতীয় উইকেট জুটিতেও আসে ৪৫ রান। ওপেনার স্যাম বিলিংস ৬২ ও বেন ডাকেট ৬৩ রানের ইনিংস খেলেন। অলরাউন্ডার বেন স্টোকস ৪৮ বলে ৪৭ রানের ইনিংস খেলে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন। সপ্তম উইকেটে ক্রিস ওকসের(২৭*) সাথে তার ৪৫ জুটিতে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ইংল্যান্ড।


এছাড়া ওপেনার জেমস ভিন্স ৩০ ও অধিনায়ক জশ বাটলার ২৫ রান করেন। বাংলাদেশের পক্ষে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন অধিনায়ক মাশরাফি ও পেসার শফিউল। সিরিজ নির্ধারণী এই ম্যাচে ব্যাটিংয়ে শুরু আর শেষটা দারুণ করেছিল টাইগাররা। উদ্বোধনী জুটিতে তামিম ইকবাল (৬৮ বলে ৪৫) ও ইমরুল কায়েস (৫৮ বলে ৪৬ রান) ৮০ রানের জুটি গড়েন। সেই সঙ্গে ভাঙেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওপেনিংয়ে নিজেদেরই গড়া ৬ বছর আগের ৬৩ রানের রেকর্ড।ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলে সাব্বির সাব্বির রহমান ৪৯ রান করে আউট হন।


মিডিল অর্ডারে মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান আর নাসির হোসেন নিজেদের মেলে ধরতে না পারলেও বাংলাদেশকে ২৭৭ রানের লড়াকু পুঁজি গড়ে দেয় মুশফিক ও মোসাদ্দেক। সপ্তম উইকেটে মুশফিক ও মোসাদ্দেকের জুটি আবার ম্যাচে ফিরিয়ে আনে স্বাগতিকদের। শেষ পর্যন্ত ৮৫ রানে অবিচ্ছিন্ন থাকে এই জুটি। মুশফিক ৬২ বলে ৬৭ ও মোসাদ্দেক ৩৯ বলে ৩৮ রান করে অপরাজিত থাকেন। মূলত ইংলিশ লেগ স্পিনার আদিল রশিদের তোপে পথ হারায় বাংলাদেশের ইনিংস। আদিল রশিদ ৪৩ রানে ৪ উইকেট নিয়ে একাই ধ্বসিয়ে দেন বাংলাদেশের টপ অর্ডার। ৪ উইকেটের ওই হারের সাথে বাংলাদেশ ২-১ এ ওয়ানডে সিরিজ হারল ইংলিশদের কাছে।

প্রাসঙ্গিক সংবাদঃ

  • ৩-১ ব্যবধানে সিরিজ এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া
  • নখ কামড়ানো উত্তেজনায় বাংলাদেশের মর্মান্তিক পরাজয়
  • বাংলাদেশের দুর্দান্ত জয়
  • বাংলাদেশের জমজমাট জয়!
  • গম্ভীর ও কোহলির দুর্দান্ত সেঞ্চুরির তান্ডবে জয় ভারতের