স্বাগতম :
আজ: সোমবার, নভেম্বর ২৭, ২০১৭
উৎসব আমেজ রাজধানীতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধ’: নিহত ১ নিউ ইয়র্কের বাস টার্মিনালে বিস্ফোরণ কমানো হয়েছে স্বর্ণের দাম শীঘ্রই ডিএনসিসি উপ-নির্বাচন বিআরটিসি বাসে ধুমপানমুক্ত সাইন স্থাপন ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ চালে’র কেজি ৭০, আলু’র ১ টাকা ডিএনসিসি মেয়র পদ শূন্য ঘোষণা বালিতে আগ্নেয়গিরি: সর্বোচ্চ সতর্কতা

বালিতে আগ্নেয়গিরি: সর্বোচ্চ সতর্কতা

এসবিডি নিউজ24 ডট কম,ডেস্ক: ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপের মাউন্ট আগুংয়ের জ্বালামুখ দিয়ে ছাই উদগিরণ শুরু হয়েছে। দুর্ঘটনা এড়াতে ২৭ নভেম্বর (সোমবার) দেশটির কেন্দ্রীয় ও আঞ্চলিক প্রশাসন বিমান চলাচলে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে।


বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ২৪ ঘন্টার জন্য বালি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ৪৪৫টি ফ্লাইট বন্ধ করে দেয়ায় বিপাকে পড়েছে প্রায় ৫৯ হাজার যাত্রী। স্থানীয় টেলিভিশনে প্রচারিত দৃশ্যে দেখা গেছে, আগ্নেয়গিরিটির কয়েকটি স্থান থেকে শীতল লাভার ধারা (লাহার) নির্গত হচ্ছে। লাহারের সঙ্গে বের হয়ে আসা কাদা ও পাথর বাড়ি-ঘর, সেতু ও পথ-ঘাট ধ্বংস করে দিতে পারে।


ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ প্রশমন সংস্থা এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘বিস্ফোরণের সঙ্গে মাঝে মাঝে ধোঁয়া উদগিরণ হচ্ছে এবং চূড়া থেকে ১২ কিলোমিটার দূর থেকে ছোটখাটো বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যাচ্ছে। শিগগিরই বড় ধরণের বিস্ফোরণ ঘটতে পারে।’


আগুংয়ের চারপাশে ৮ থেকে ১০ কিলোমিটার এলাকার মধ্যে যেসব বাসিন্দা রয়েছেন তাদেরকে দ্রুত বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়ার অনুরোধা জানানো হয়েছে। এর আগে রোববার দুর্যোগ প্রশমন বিভাগ জানিয়েছিল, ধোঁয়ায় ঢেকে যাওয়া এলাকাগুলোতে কর্তৃপক্ষ মাস্ক বিতরণ শুরু করেছে। ছাইয়ের মেঘ বালি থেকে পূর্বে লম্বোক দ্বীপের দিকে যাচ্ছে। সেখানকার প্রধান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। লম্বোকে ছাইবৃষ্টি হয়েছে ।


১৯৬৩ সালে সর্বশেষ মাউন্ট আগুং থেকে লাভার উদগিরণ হয়। ওই সময় এক হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয় এবং আশেপাশের বেশ কয়েকটি গ্রাম লাভার নিচে চাপা পড়ে নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়।

প্রাসঙ্গিক সংবাদঃ

  • বিদেশী চলাচলে সতর্কতা গ্রহণের বার্তা
  • উপকূলে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত
  • চিলির উত্তরাঞ্চলে ভূমিকম্পঃ সুনামি সতর্কতা জারি
  • ‘মহাসেন’ উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে: দুর্যোগ মোকাবেলায় সর্বোচ্চ প্রস্তুতি!
  • সুনামি সতর্কতা প্রত্যাহার ।। চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে স্বাভাবিক কার্যক্রম